শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১২:২৭ অপরাহ্ন

নোটিশ :
✆ন্যাশনাল কল সেন্টার:৩৩৩| স্বাস্থ্য বাতায়ন:১৬২৬৩|আইইডিসিআর:১০৬৬৫|বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন:০৯৬১১৬৭৭৭৭৭
সংবাদ শিরোনাম
২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে চসিকের ৬ তলা নগর ভবনের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন বাধ্যতামূলক কৃষির মাধ্যমে ২ থেকে ২.৫ কোটি লোকের কর্মসংস্থান করে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা সম্ভব নানা আয়োজনে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের আনন্দ সম্মিলন সম্পন্ন শ্রমিকদের ঠকিয়ে অর্থনীতির বিকাশ নিশ্চিত করা যাবে না বোয়ালখালী ফোরাম চট্টগ্রামের উদ্যোগে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার স্যালাইন বিতরণ সম্পন্ন সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের মহিলা মাহফিল সম্পন্ন বৃহত্তর চট্টগ্রামে পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত কালুরঘাট ফেরিতে হিট স্ট্রোকে মাদ্রাসা শিক্ষকের মৃত্যু তীব্র তাপদাহে সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের শরবত বিতরণ

গ্রাহকরা টিকার সনদ পত্রের বাধ্যবাধকতা মানতে চান না : সৈয়দ আবদুল হান্নান বাবু

ফেইসবুকে নিউজটি শেয়ার করুন...

স্টাফ রিপোর্টার :
বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদুল হান্নান বাবু তৃতীয় ঢেউয়ে করোনা সনাক্তের উর্ধ্বগতির হার বৃদ্ধি জনিত কারণে ১১দফা সরকারি নির্দেশনা হোটেল রেস্তোরাঁয় টিকার সনদপত্র ছাড়া খাবার না নেয়ার বাধ্যবাধকতা গ্রাহকরা মানতে চান না বলে দাবী করেছেন।

সৈয়দ আবদুল হান্নান বাবু

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, গ্রাহকদের যুক্তি হলো- দেশের মোট ১৮কোটি মানুষের মধ্যে এই পর্যন্ত এক তৃতীয়াংশ বা ৬কোটি মানুষ টিকা নিতে পেরেছেন। এর মধ্যে অর্ধেক এর বেশি টিকা গ্রহীতা সনদপত্র পাননি বা প্রক্রিয়াধীন আছে। প্রতিদিনই কর্মদিবসে অফিস আদালত, ব্যাংক-বীমাসহ অসংখ্য সরকারী-বেসরকারী সংস্থা, বাজার, শপিংমলে কয়েক লক্ষ মানুষ জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে। এদের নৈমক্তিক খাবার-দাবার হোটেল-রেস্তোরঁায় করতে হয়। তাহলে এখনই যারা টিকার সনদপত্র পাননি বা টিকা নেনটি তাদের বিশাল জনগোষ্ঠীর উপোস থাকা ছাড়া উপায় নেই। যা অমানবিক ও মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী এবং অযৌক্তিক। উক্ত বিবৃতিতে আরো বলা হয়, হোটেল রেস্তোরাঁয় অবশ্যই স্বাস্থ্য-বিধি ও সরকারী নির্দেশনা মেনে চলা উচিত। কোথাও স্বাস্থ্য লঙ্ঘিত হলে প্রশাসন পদক্ষেপ নিতে পারেন এবং যুক্তিসম্মত শাস্তি বা জরিমানা ধার্য করা যেতে পারে। জরিমানার অংক যদি ৫ থেকে ১০ হাজার টাকার মধ্যে থাকে তা যৌক্তিক। কিন্তু জরিমানার অংক যদি এক লাখ টাকা ছাড়িয়ে যায় একজন মালিকের পক্ষে তা বহন করা অসাধ্য। আমরা চাই প্রশাসন আমাদের সতর্ক ও সজাগ করতে কার্যক্রম অব্যাহত রাখুক।

ফেইসবুকে নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য লিখুন


Archive

© All rights reserved © 2021 Dainiksomor.net
Design & Developed BY N Host BD